December 6, 2021, 2:09 pm


ইলিশের বাড়তে ইলিশের দামে আগুন

মো. মহিউদ্দিন আল আজাদ:

আগামী ৪ সেপ্টেম্বর থেকে ২২ দিন মা ইলিশ রক্ষায় নদীতে নিষেধাজ্ঞা। এই শেষ সময় চাঁদপুরে চাহিদা বেশি থাকায় ইলিশের দাম ক্রেতাদের হাতের নাগালের বাইরে চলে গেছে। কেজি প্রতি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ১৪শ’ থেকে ১৬শ’ টাকায়।

এসব ইলিশ স্থানীয় পদ্মা-মেঘনা এবং ভোলা থেকে এসেছে। দাম বেশি হলেও এসব ইলিশ কিনতে ঘাটে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভীড় দেখা যায়। ক্রেতাদের চাপ সামলাতে অনেক দূরে ইলিশ পাঠানো হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। ১ অক্টোবর শুক্রবার চাঁদপুর বড়ষ্টেশনের মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে গিয়ে এ চিত্র দেখা যায়।

মাছঘাটে ইলিশ কিনতে আসা ক্রেতা পলাশ, মিজান, রিয়াজসহ আরও অনেকে জানান, বাসা থেকে ইলিশ কিনতে ঘাটে এসেছি। ভেবেছিলাম ১ কেজি সাইজের ইলিশ সর্বোচ্চ ৯শ’ থেকে এক হাজার টাকা হবে। কিন্তু এখন এসে দেখি ১৪শ’ থেকে ১৬শ’ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মানুষের ভীড়ে ইলিশ কিনতে দাঁড়াতে পর্যন্ত পারছি না। তবুও আমরা আশা করছি ৪/৫ কেজি ইলিশ কিনবো।

এ ব্যপারে বাবুল হাজী, আলী আকবর, কুদ্দুস খান, ফারুক চোকদারসহ একাধিক মাছের আড়তদার জানিয়েছেন, ভারতে ইলিশ পাঠানোর তেমন প্রভাব আমাদের এই মাছঘাটে নেই। স্থানীয় ক্রেতাদের চাপ সামলাতেই হিমশিম খাচ্ছি। লোকাল নদীতে মাছ নেই এবং দক্ষিণাঞ্চলের নদীতেও ইলিশ না থাকায় আমদানি কম। তাই ক্রেতাদের চাহিদা সামলাতে ইলিশের দাম কয়েকগুণ বেড়ে গেছে।

চাঁদপুর মৎস্য বনিক সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাজী শবে বরাত সরকার জানিয়েছেন, ১ কেজি সাইজের পদ্মা-মেঘনার ইলিশের দাম ১৪শ’ থেকে ১৬শ’ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। গত বছর এ সময় এই ইলিশের দাম ৭শ’ থেকে ৮শ’ টাকা থাকলেও এবার ইলিশের বাজার আগুন। প্রচুর লোক ইলিশ কিনতে ঘাটে আসলেও দিনে ২০০ মণ ইলিশও বিক্রি করা যাচ্ছেনা। আমদানি কম থাকায় এ সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। আমরা অনলাইনেও ইলিশ বিক্রি কমিয়ে দিয়েছি।

চাঁদপুর মৎস্য সমবায় সমিতির সভাপতি আব্দুল বারি জমাদার মানিক  জানান, ২২ দিনের মা ইলিশ রক্ষা অভিযান আগামী ৪ অক্টোবর থেকে শুরু হবে বলে ঘাটে ইলিশ কিনতে ক্রেতাদের ভীড় বেড়েছে। কিন্তু মাছ কম থাকায় চাহিদা বেশি হওয়ায় ইলিশের দাম তুলনামূলক বেশি রাখতে হচ্ছে। চাপ সামলাতে আমরা অনলাইনে ইলিশ বেচাও অনেকটা কমিয়ে দিয়েছি। আধা কেজি ওজনের ইলিশ ৭’শ থেকে ৮’শ টাকা এবং ১ কেজি বা তার একটু বড় সাইজের ইলিশ ১৪’শ থেকে ১৬’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে দুই কেজি ওজনের চেয়ে তেমন একটা বড় ইলিশ ঘাটে নেই। এ সময় তিনি মা ইলিশ রক্ষা অভিযান সঠিক সময় দেয়া হচ্ছে না জানিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এ ব্যপারে চাঁদপুর সদর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সুদীপ ভট্টাচার্য জানান, ইলিশ বেচাকেনায় মানুষের আগ্রহ বেড়ে যাওয়ায় ঘাটে ইলিশের দাম বেড়ে গেছে। তাছাড়া মা ইলিশ রক্ষা অভিযান শুরু হওয়া এবং ভারতে ইলিশ পাঠানো কারণে ইলিশের দাম বেশি হতে পারে। মা ইলিশ রক্ষা অভিযানের তারিখ কেন্দ্রীয়ভাবে মন্ত্রণালয় সকলের সাথে সমন্বয় করেই দেয়া হয়েছে। এটি দেশের ইলিশ সম্পদ রক্ষার বৃহৎ স্বার্থে আমরা বাস্তবায়ন করতে সকল প্রস্তুতি ইতিমধ্যে সম্পন্ন করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে