September 17, 2021, 6:40 pm


লকডাউনে ছাগলের হাট, ম্যাজিস্ট্রেটকে দেখে পালালো বেপারীরা

লকডাউনে ছাগলের হাট, ম্যাজিস্ট্রেটকে দেখে পালালো বেপারীরা

ম্যাজিস্ট্রেটকে দেখে পালিয়েছে হাজীগঞ্জ উপজেলার বাকিলা বাজারের ছাগল ব্যবসায়ীরা। প্রায় শতাধিক ব্যবসায়ী বিক্রির জন্য এ দিন বাজারে ছাগল নিয়ে হাজির হন। কঠোর লকডাউনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে জমে উঠে ছাগলের হাট। এমন সংবাদ জানতে পারেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)।

সোমবার (২৬ জুলাই) দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার হানা দেন বাকিলা বাজারে। ম্যাজিষ্ট্রেট আসার পরেই ছাগল ব্যবসায়ীরা সরে যায় বাজার থেকে। এ সময় মাস্ক ব্যবহার না করায় বেশ কয়েকজন পথচারী, সিএনজি স্কুটার চালক ও মোটর সাইকেল চালকে জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার হাজীগঞ্জের বাকিলা বাজারে চলমান কঠোর লকডাউনের মধ্যেও জমে উঠে ছাগলের হাট। একই সাথে হাঁস, মুরগি, কবুতরসহ পুরো বাজার জমে উঠে সকাল থেকে। বাজারে আসা অর্ধেক লোকের মুখে মাস্ক ছিলো না। ছিলো না কোন স্বাস্থ্য বিধির বালাই।

সরজমিনে দেখা যায়, বাকিলা বাজারের সাপ্তাহিক হাটের দিন হিসেবে কঠোর লকডাউনের মধ্যে দুপুরে সবধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা। মাছ বাজার, তরকারি বাজারের ব্যবসায়িরা অন্য স্বাভাবিক সময়ের মতো পসরা সাজিয়ে বিকিকিনি শুরু হয়েছে ।

বাজারের মধ্য দিয়ে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের বাজার অংশে সড়কের দু’পাশে নারকেল, কাঠাল, গাছের চারা, পান, সুপারি, টেঁটা তৈরির দোকান বসেছে সারি বেঁধে।

সকাল থেকে গরুর বাজার অংশে জাঁকজমক পূর্নভাবে বসেছে ছাগলসহ হাঁস মুরগির বাজার। ছাগল বাজারে ছাগলের বিক্রি শুরু হয়েছে দেদারছে। নেই কোন মাস্ক বা স্বাস্থ্য বিধির নিয়মের তোয়াক্কা। এমন সময় ভ্রাম্যামান আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেটের হানা বাজারে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোমেনা আক্তার জানান, আমরা ছাগলের হাট বন্ধ করে দিয়েছি। বাকিলা বাজারের সাপ্তাহিক হাট বারগুলোতে করোনাকালীন সময়ে গরু ছাগলের বাজার আর বসানো যাবে না। এ ছাড়া মাছ তরকারি বাজার বাকিলা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বসানোর জন্য ইজারাদার আব্দুল খালেককে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে