July 27, 2021, 6:10 am


গৃহবুধু রুবি-ফাইল ছবি।

হাজীগঞ্জে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধেুকে হত্যার অভিযোগে মামলা

মো. জহির হোসেন:

হাজীগঞ্জে ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগে হাজীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। স্বামীস ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নির্যাতনের কারণে রুবির মৃত্যু হয় বলে নিহতের বাবার পরিবার দাবি করে। এ ঘটনায় নিহতের মা বাদী হয়ে হাজীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

হত্যার শিকার ওই গৃহবধুর রুবি উপজেলার রাজারগাঁও ইউনিয়নের মুকুন্দসার গ্রামের বকাউল বাড়ির মানিক বকাউলের স্ত্রী ও মতলব দক্ষিণ উপজেলার বাঁকড়া গ্রামের সেলিম বকাউলের মেয়ে। রুবি ও মানিক বকাউল দম্পতির রবিন নামের ৬ বছর বয়সের একটি ছেলে রয়েছে।

এর আগে ১৬ জুন (বুধবার) সন্ধ্যায় তবে নিহতের স্বামীর পরিবার দাবি করেছে, রুবি বিষপানে আত্মহত্যা করেরেছ।

রুবির ভাই শাহাদাত ও তার চাচা জসিম বকাউল জানান, ২০১৪ সালে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের দুই বছরের মধ্যে মানিক বকাউল প্রবাসে চলে যান। তারপর থেকেই তার শাশুড়িসহ অন্যরা পারিবারিক ছোটখাটো বিষয় নিয়ে রুবিকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন চালানো শুরু করে। এসব নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায় মনোমালিন্য হতো। সমপ্রতি মানিক দেশে আসলে এসব বিষয় নিয়ে রুবি তার স্বামী মানিককে সব জানায়। এতে মানিক ক্ষুব্ধ হয়ে স্ত্রীকে মারধর করেন। এতে করে রুবি রাগ করে বাবার বাড়ি চলে যায়। পরে তার বাবা-মা বুঝিয়ে স্বামীর বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়ার কয়েকদিন পর গত বুধবার বিকেল ঘটে মর্মান্তিক ঘটনা।

রুবির ভাই আরও জানান, রুবির শ্বশুর বাড়ির লোকজন বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে আমাদের বাড়িতে মোবাইল ফোনে জানায়, রুবি বিষপান করেছে। এরপর আমরা ওই বাড়িতে গিয়ে বোনকে উদ্ধার করে প্রথমে আলীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে আড়াইশ শয্যাবিশিষ্ট চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসকরা জানান, সে মারা গেছে।

রুবি ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করে থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ হারুনুর রশিদ জানান, এ বিষয়ে নিহতের মা ফরিদা বেগম বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ময়না তদন্ত শেষে নিহতের বাবার পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে