June 20, 2021, 9:04 am


আবারো ইসরাইল হামাস যুদ্ধের আশঙ্কা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ইসরাইলি সেনাবাহিনীর ধরপাক বন্ধ না হলে আবারো যুদ্ধ শুরু হবে বলে ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছে।

ইহুদিবাদী ইসরাইল যদি ফিলিস্তিনে আগ্রাসন অব্যাহত রাখে তাহলে ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলনসহ বিভিন্ন সংগঠন আবার যুদ্ধ শুরু করবে।

তিউনিসিয়ার রাজধানী তিউনিসে তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনাদোলুকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন হামাসের অন্যতম মুখপাত্র সামি আবু জুহরি।

সামি আবু জুহরি বলেন, ইহুদিবাদী ইসরাইল চুক্তির প্রতি সম্মান দেখাচ্ছে না এবং পশ্চিমতীরের শহরগুলোতে নিয়মিত আগ্রাসন চালাচ্ছে। এছাড়া, পবিত্র জেরুজালেম আল-কুদস শহরের লোকজনকে উদ্বাস্তু করে দেয়ার গোপন মিশন এখনও চলছে।

এ অবস্থা চলতে থাকলে ইসরাইলের বিরুদ্ধে নতুন করে যুদ্ধ শুরু করতে পারে হামাস। এ জন্য সকল প্রস্তুতিই নিয়ে রাখছে হামাস। আর এ যুদ্ধে ইহুদীবাদী দখলদার ইসরাইলের সর্বত্র ক্ষেপনাস্ত্র হামলা করা হবে।

সামি আবু জুহরি বলেন, মিশরের মধ্যস্থতায় হামাস এবং ইসরাইলের মধ্যে যে দুর্বল যুদ্ধবিরতি হয়েছে হামাস তা এখনো মেনে চলছে। তবে ইসরাইলের আচরণের ওপর এর ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে।

তিনি সুস্পষ্ট করে বলেন, ইসরাইল যতক্ষণ পর্যন্ত এই যুদ্ধবিরতি চুক্তি মেনে চলবে হামাসও ততক্ষণ পর্যন্ত তা মানবে। দখলদার ইসরাইলের অপরাধমূলক তৎপরতার কারণে এই অস্ত্রবিরতি চুক্তি অনেকটাই ভঙ্গুর।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, পূর্ব জেরুজালেমের ফিলিস্তিনিদের বসতি শেখ জারাহতে প্রতিদিন বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সেখানে ডজনের বেশি ফিলিস্তিনি পরিবার জোরপূর্বক উচ্ছেদের মুখে বসবাস করছেন। গত মাসে এই প্রতিবাদের জেরেই ইসরাইল এবং হামাসের মধ্যে যুদ্ধ বেধে যায়। টানা ১১ দিনব্যাপী ওই যুদ্ধে ইসরাইলের হামলায় অন্তত ২৪২ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়, যাদের মধ্যে অর্ধশতাধিক শিশু। অন্যদিকে, হামাসের ছোড়া রকেটে ইসরাইলের ১৩ জন নিহত হয়।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে