Tuesday , 25 June 2024
hamas

হামাস ও ইসরাইলি বাহিনীর মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ

২০২৩ সালের ৭ অক্টোবরের পর আবার ভয়াবহ সংঘর্ষে জড়িয়েছে হামাস যোদ্ধা ও ইসরাইলি বাহিনী। এতে দু’পক্ষের অনেকে হতাহত হয়। সংঘর্ষের পর গাজা থেকে দক্ষিণ ইসরাইলে ফিরে যায় ইসরাইলি বাহিনী। তাদের বিশাল গাড়িবহর গাজা অতিক্রম করার সময় নির্বিচারে গুলি বর্ষণ ও বোমা নিক্ষেপ করে।

এদিকে অবরুদ্ধ গাজায় ইসরাইলি বাহিনীর সাথে রাতভর ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের তুমুল লড়াই হয়েছে। অব্যাহত রয়েছে ইসরাইলি বোমা হামলাও। ইসরাইলি বাহিনী গাজা শহরের মধ্য এলাকাকে লক্ষ্য করে এ বোমা হামলা চালাচ্ছে। হামলা চালিয়েছে নুসেইরাত শরণার্থী ক্যাম্পেও। এ ক্যাম্পের একটি মসজিদেও হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী।

আল-জাজিরার খবর অনুযায়ী প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, আল-মুগরাকা এলাকার বোমা হামলা অব্যাহত রয়েছে। এখানেই হামাস যোদ্ধা ও ইসরাইলি বাহিনীর সদস্যদের মাঝে তুমুল লড়াই অব্যাহত রয়েছে। একই সময়ে ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো মধ্য গাজায় অবস্থান নেয়া ইসরাইলি বাহিনীর ওপর আক্রমণ চালাচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন,সেখানে তুমুল সংঘর্ষ ও গুলি বিনিময় চলছে।

কামান থেকে বোমা হামলা অব্যাহত রয়েছে গাজা উপত্যকার উত্তরাঞ্চলে। বিশেষ করে সেইখ ইজলিন এলাকায়। তবে এখন পর্যন্ত সেখানে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

গত বছরের ৭ অক্টোবর থেকে অবরুদ্ধ গাজায় ইসরাইলি বাহিনীর অব্যাহত আক্রমণে নিহত ফিলিস্তিনির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৪ হাজার ৫ শ ৯৬ জনে। এছাড়া আহত হয়েছেন আরো ৭৭ হাজার ৮ শ ১৬ জন। বৃহস্পতিবার গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

মন্ত্রণালয়টি জানিয়েছে,২৪ ঘণ্টায় নিহত হয়েছে ২৮ জন আর আহত হয়েছে আরো ৫১ জন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, ৭ অক্টোবর হামলা শুরুর পর থেকে গাজার ৪ শতের বেশি চিকিৎসা স্থাপনায় আক্রমণ চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী। ৪৪৩টি হামলায় নিহত হয়েছে ৭২৩ জন এবং আহত হয়েছে আরো ৯২৪ জন চিকিৎসাকর্মী।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে এ তথ্য জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এতে আরো জানানো হয়,হামলায় ১০১টি চিকিৎসা স্থাপনা ও ১০৬টি অ্যাম্বুলেন্স ধ্বংস করা হয়েছে।

খান ইউনিসের নাসের হাসপাতালসহ কয়েকটি চিকিৎসা স্থাপনার ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ এখনো উন্মোচিত হচ্ছে। গত ফেব্রুয়ারিতে ইসরাইলি বাহিনী এ হাসপাতালটি ঘেরাও করে আক্রমণ করেছিল।

এদিকে,এ হাসপাতাল এলাকায় সন্ধান পাওয়া গেছে কয়েকটি গণকবরের। এসব গণকবরে ৩০০’রও বেশি লাশ পাওয়া গেছে। যাদের মধ্যে ওই হাসপাতালের রোগী ও শিশুরা রয়েছে। সূত্র : আলজাজিরা

এছাড়াও দেখুন

BNp

‘দেশে গণতন্ত্র নেই, আইনের শাসন নেই’

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান,বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীরউত্তম এর ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *