Wednesday , 19 June 2024

ইউরোপিয়ান সুপার লিগের ভবিষ্যৎ আসলে কি

ফুটবল বিশ্ব স্পষ্টতই দুই ভাগে ভাগ হয়ে গেছে। একদল ইউরোপিয়ান সুপার লিগের পক্ষে। সেই দলে যাঁরা আছেন, তাঁদের কথা—সুপার লিগের ফুটবলের মুক্তি, এটাই ফুটবলকে উয়েফা ও ফিফার একাধিপত্য থেকে বাঁচাবে। আর যাঁরা এর বিপক্ষে, তাঁদের ভাষ্য—সুপার লিগ আসলে স্বার্থপর।

রিয়াল মাদ্রিদের কোচ কার্লো আনচেলত্তি প্রথম দলেই আছেন। সুপার লিগ নিয়ে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) সর্বোচ্চ আদালত যে রায় গতকাল দিয়েছেন, সেটা সবার জন্যই ইতিবাচক বলে আখ্যা দিয়েছেন রিয়ালের ইতালিয়ান কোচ।

সুপার লিগের মূল কারিগর মূলত রিয়াল মাদ্রিদের সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। সেদিক বিবেচনায় রিয়ালের কোচ আনচেলত্তির সুপার লিগের পক্ষেই থাকার কথা! ২০২১ সালের এপ্রিলে তাঁর নেতৃত্বে রিয়াল মাদ্রিদসহ ইউরোপের ১২টি ক্লাব নতুন এক ফুটবল প্রতিযোগিতা সুপার লিগ আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছিল। উয়েফা ও ফিফার চাপ এবং সমর্থকদের বিরোধিতার মুখে তিন দিনের মধ্যেই অবস্থান পাল্টে ফেলে ৯টি ক্লাব। পরে ইতালির ক্লাব জুভেন্টাসও সরে যায়। কিন্তু রিয়াল ও বার্সেলোনা তাদের অবস্থান থেকে নড়েনি।

সুপার লিগের প্রোমোটাররা গত বছর এ২২ স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট নামে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলে। এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে উয়েফাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপার লিগ কর্তৃপক্ষ ইউরোপের সর্বোচ্চ আদালত কোর্ট অব জাস্টিসে যায়। সুপার লিগ আয়োজনের ঘোষণা দেওয়ার পর উয়েফা বলেছিল, ‘বিদ্রোহী’ এই লিগে খেলা ক্লাব আর খেলোয়াড়দের নিষিদ্ধ করবে তারা। এর বিরুদ্ধেই আদালতে গিয়েছিল সুপার লিগ কর্তৃপক্ষ।

আদালত গতকাল এ মামলার রায় দিয়েছেন। বিদ্রোহী টুর্নামেন্ট হিসেবে পরিচিতি পাওয়া ইউরোপিয়ান সুপার লিগ আয়োজনে বাধা দিতে উয়েফা ও ফিফা যে পদক্ষেপ নিয়েছিল, তা ইউরোপীয় ইউনিয়নের আইন ভঙ্গ করেছে বলে রায় দিয়েছেন ইউরোপের সর্বোচ্চ আদালত। সুপার লিগকে নিষিদ্ধ করা ‘বেআইনি’ বলেও রায়ে উল্লেখ করা হয়।

আদালতের এই রায় নিয়ে পক্ষে–বিপক্ষে অনেক কথা হচ্ছে। আলাভেজের বিপক্ষে কাল লা লিগার ম্যাচ জয়ের পর সংবাদ সম্মেলনে আনচেলত্তি এ বিষয় নিয়ে বলেন, ‘আমি মনে করি, সব ক্লাবের জন্যই এটা গুরুত্বপূর্ণ এক সিদ্ধান্ত। আমার মনে হয় দিন শেষে এটা ইতিবাচক। কারণ, এখানে কোনো একাধিপত্য থাকবে না।’

আনচেলত্তি এরপর যোগ করেন, ‘আন্তর্জাতিক সূচির উন্নয়ন করা যেতে পারে। আমি তো মনে করি, এটা সবার জন্যই ইতিবাচক।’ সুপার লিগের ফরম্যাট নিয়ে কী ভাবছেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে আনচেলত্তি বলেন, ‘আমাকে ফরম্যাটটা দেখতে হবে। কিন্তু আদালত যে রায় দিয়েছেন, সেটা ফুটবলের জন্য ভালো।’

২০২১ সালের এপ্রিলে যাঁরা সুপার লিগের বিরোধিতা করেছিলেন, তাঁরা মূল কারণ হিসেবে বলেছিলেন—এই লিগে কোনো অবনমন বা উত্তরণ নেই। ফলে ছোট বা মাঝারি ক্লাবগুলো এখান থেকে কিছু পাবে না। বড় ক্লাবগুলোই আর্থিকভাবে সব সময় লাভবান হবে।

আদালতের রায়ের পর গতকাল নতুন করে সুপার লিগের ফরম্যাটের কথা বলেছেন এ২২–এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বার্নড রাইখার্ট। সেখানে তিনি বলেন, সুপার লিগে খেলা দলগুলোর ক্ষেত্রে উত্তরণ আর অবনমনের নিয়ম থাকবে। আর ইউনিফাই নামে নতুন একটি স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মে খেলাগুলো বিনা মূল্য দেখানো হবে বলে জানিয়েছেন রাইখার্ট। সুপার লিগ নিষিদ্ধ করা বেআইনি—আদালত এই রায় দেওয়ার পর রাইখার্ট এক ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘ফুটবল মুক্ত। উয়েফার একাধিপত্য থেকে মুক্ত। এখন নিষেধাজ্ঞার ভয় না করে সেরা পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়ন করা যাবে।’

৬৪টি দল তিনটি ভিন্ন স্তরের লিগে খেলবে। শীর্ষ লিগ, যেটার নাম দেওয়া হয়েছে স্টার লিগ, সেখানে দুই ভাগে ভাগ হয়ে ১৬টি দল খেলবে। দ্বিতীয় স্তরের গোল্ড লিগে একইভাবে দুই ভাগে ভাগ হয়ে খেলবে ১৬টি দল। আর তৃতীয় স্তরের ব্লু লিগে দল থাকবে ৩২টি। এরা চারটি গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলবে। রাইখার্ট বলেছেন, ‘এখানে দলগুলো অংশ নেবে মাঠের পারফরম্যান্সের ওপর ভিত্তি করে। স্থায়ী কোনো সদস্য থাকবে না আর ক্লাবগুলো ঘরোয়া লিগেও খেলবে।’

প্রতিযোগিতার নিয়ম অনুযায়ী নকআউট পর্বে ওঠার আগে প্রতিটি ক্লাব ১৪টি ম্যাচ খেলবে। ইউরোপের অন্য ক্লাবগুলোও ‘অন্তত ৪০ কোটি ইউরো’ পাবে বলে ঘোষণা দিয়েছে এ২২, যেটা উয়েফার বর্তমান বরাদ্দের দ্বিগুণের বেশি। টুর্নামেন্টের সব খেলা হবে সপ্তাহের মাঝামাঝি সময়ে, এখন যে সময় চ্যাম্পিয়নস লিগ আর উয়েফার অন্য লিগগুলোর খেলা হয়। ৩২ দলের মেয়েদের টুর্নামেন্ট আয়োজনেরও পরিকল্পনা করছে এ২২।

 

এছাড়াও দেখুন

কবি নজরুলের ১২৫তম জন্মজয়ন্তী আজ

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মজয়ন্তী ২৫ মে আজ শনিবার । তাঁর উপন্যাস, নাটক, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *