April 21, 2021, 10:02 am


দূর্বৃত্তদের হাতে হত্যার শিকার হাজীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী সেলিমের ছেলে প্রকৌশলী বাপ্পি মাহমুদের সাথে তোলা ছবি। অবুঝ ২ সন্তান আবদুল্লাহ ও আবিদা জানেনা তার বাবা বেঁচে নেই।

প্রকৌশলী বাপ্পি হত্যাকাণ্ড: অজ্ঞাতনামাদের আসামী করে মামলা, এক বন্ধুকে খুঁজছে পুলিশ

মো. মহিউদ্দিন আল আজাদ:

হাজীগঞ্জে নিখোঁজের ৩ দিন পর প্রকৌশলী বাপ্পি মাহমুদ প্রকাশ আবু বকর বাপ্পি (৩৫) নামক এক ব্যবসায়ীর মৃত্যুদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে পৌরসভাধীন ১২নং ওয়ার্ডের হাজীগঞ্জ-রামগঞ্জ সড়ক লাগোয়া বেপারী বাড়ীর (বৈষ্ণব বাড়ী) পুকুর থেকে প্রকৌশলী ও ব্যবসায়ী বাপ্পি মাহমুদের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। বাপ্পি মাহমুদ হাজীগঞ্জ বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাজী সেলিমের বড় ছেলে।

বাপ্পি হত্যার ঘটনায় তার বাবা হাজী সেলিম বাদী হয়ে বাপ্পির মৃতদেহ উদ্ধারের পরের দিন ২৩ ফেব্রুয়ারি অজ্ঞাতনামাদের আসামী করে হাজীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছে। যার মামলা নং ৩৩। দণ্ডবিধি ৩০২/২০১/৩৪।

দূর্বৃত্তদের হাতের হত্যার শিকার বাপ্পি তার বাপের সাথে তাদের ব্রিক ফিল্ড ও ২টি এলপিজি গ্যাস (সিএনসিজি) পাম্প, সার’সহ অন্যান্য ব্যবসা পরিচালনা করতেন। হাজী সেলিমের ২ ছেলে ও ১ মেয়ের মধ্যে বাপ্পি সবার বড়।

প্রকৌশলী বাপ্পি মাহমুদ তার সার্টিফিকেট নাম আবু বকর বাপ্পি। বাপ্পি বিবাহিত। তার স্ত্রী ১ ছেলে ও ১ মেয়ে রয়েছে। বড় ছেলে আবদুল্লাহ (৫) মেয়ে আবিদা (৩)।

এদিকে বাপ্পির মৃতদেহ পাওয়ার সংবাদ শুনে তার বাড়ীতে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। বাবা-মা, ভাই-বোন, স্ত্রীর কান্নায় আকাশ ভারী হয়ে উঠে।

বাপ্পির মা পুলিশকে জানান, ১৯ ফেব্রুয়ারি রাতে বাপ্পি বাসার সামনের রুমে বসা ছিল। টেবিলে খাওয়ার দেয়ার পর দেখা গেলো সে নেই। পরে আমার ছোট ছেলে আরিফকে বলার পর সে নিছে খুঁজে পায়নি। কিছুক্ষণ পর আমার স্বামীর মোবাইল ফোনে আমাদের ম্যানেজার গৌতম ফোন করে জানান, বাপ্পি আংকেল জিয়া নগর এসে আমার খোঁজ করছে। সে একা এসেছে, তার সাথে আর কেউ নেই। পরবর্তীতে আমার স্বামী ও ছোট ছেলে আরিফসহ জিয়া নগর গিয়ে তাকে সেখানে আর পায়নি। এর পর থেকে তার মোবাইল বন্ধ ছিল।

হাজী সেলিম তার বাসায় ছেলের শোকে কাতর অবস্থায় বলেন, চেনা-জানা লোকই আমার ছেলেকে হত্যা করেছে। কি দোষ ছিল তার। তাকে কেনো এভাবে নির্মমভাবে হত্যা করা হলো।

বাপ্পির স্ত্রী তিন্নি নির্বাক দৃষ্টিতে মানুষের দিকে তাকিয়ে ছিল। কথা বলার সময় তার মুখ বারে বারে বন্ধ হয়ে আসছিল। ২টি অবুঝ শিশুকে নিয়ে নির্বাক অবস্থায় বসে আছে। বাপ্পির ২টি শিশুপুত্র খাটের উপর বসে পুতুল নিয়ে খেলছে। সবাই কান্না-কাটি করলেও সে দিকে খেয়ালই নেই শিশুদের।

বাপ্পি ছিলেন খুবই নম্র ও ভদ্র ছেলে। রাস্তা-ঘাটে কারো সাথে তার কথা-বার্তা ছিল খুবই কম। তবে সে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজী ছিল।

বাপ্পির মৃতদেহ পাওয়ার খবর শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে যান হাজীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী মাইনুদ্দীন, জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ রোটা. আহসান হাবিব অরুন।

হাজী সেলিমের বাড়ীতে তাঁকে শান্ত্বনা দিতে ছুটে যান হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আ. স. ম মাহবুব-উল আলম লিপন, হাজীগঞ্জ মডেল সরকারি কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ড. মো. আলমগীর কবির পাটওয়ারী, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ সৈয়দ আহমদ খসরু’সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারী রাতে বাপ্পি বাসা থেকে বাজারের উদ্দেশ্যে বের হয়। রাতে বাসায় না ফিরলে তার বাবা হাজী সেলিম ২০ ফেব্রুয়ারি হাজীগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। পুলিশ বিভিন্ন স্থানে তার খোঁজে সন্ধান চালায়।

হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) সদ্য ওসি চাঁদপুর সদর মো. আবদুর রশিদ জানান, অনেক কিছু মাথায় রেখে তদন্ত চলছে। হত্যার শিকার বাপ্পির মোবাইল নম্বর ট্যাকিং চলছে। এ ছাড়াও তার ফেইসবুক আইডি’র স্ট্যাটাসগুলো যাছাই বাছাই চলছে। বাপ্পি কেথায় কার সাথে যেতো। ১

৯ ফেব্রুয়ারি দিনে বা রাতে বাপ্পি কোথায় কোথায় গিয়েছে। কার কার সাথে মিশেছে সব বিষয়গুলো মাথায় রেখে কাজ করছে পুলিশ। এ ছাড়াও তার পরিবার যদি কাউকে সন্দেহ করে তাদের বিষয়ও খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। বাপ্পির এক বন্ধুর বিষয়ও খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে বলে জানান সদ্য পদোন্নতি প্রাপ্ত এ পুলিশ কর্মকর্তা।

হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আলমগীর হোসেন রনি জানান, প্রকৌশলী বাপ্পি মাহমুদের মোবাইল ট্যাকিং করে তার অবস্থান হাজীগঞ্জ বাজার পাওয়া যায়। আমরা গত কয়েকদিন ধরে রাত দিন তার সন্ধান পেতে বিভিন্ন জায়গায় খবর নিচ্ছি। সকালে স্থানীয়রা খবর দিলে রান্ধুনীমুড়ার একটি পুকুর থেকে তার মৃতু দেহ উদ্ধার করা হয়।

তিনি বলেন, পুলিশ গুরুত্বসহকারে মামলাটি তদন্ত করছে। ইতোমধ্যে সন্দেহজনক কয়েকজন আমাদের নজরে রয়েছে। সহসাই ভালো রেজাল্ট পাওয়া যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে