March 3, 2021, 6:53 pm


শাহরাস্তিতে সরকারী রাস্তায় চলাচলে বাঁধা: প্রতিবাদে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

শাহরাস্তি প্রতিনিধি: শাহরাস্তিতে সরকারী অনুদানে সৃষ্ট রাস্তার উপরে নিষেধাজ্ঞা জারী করা হয়েছে। এঘটনায় সুবিধা বঞ্চিত ব্যক্তিরা প্রতিবাদ জানিয়েছেন। ১৮ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার রায়শ্রী দক্ষিন ইউনিয়নের আহাম্মদ নগর আবদুস সাত্তারের দোকানের সামনে এই প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি বাবু ডাঃ নিমাই চন্দ্র পালের সভাপতিত্বে ও ছাত্রনেতা আবদুল্লাহ্ আল্ মামুনের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন, জেলা পরিষদের সন্মানিত সদস্য তুহিন খান।

এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন, রায়শ্রী দক্ষিন ইউপি চেয়ারম্যান হাজী আবু হানিফ, ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি জয়নাল আবেদীন, আওয়ামীলীগ নেতা শফিউল্লাহ্, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোঃ ওমর ফারুক ভূইয়া ও আবদুর রব এবং ৩নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মোঃ ফারুক।

জানা যায়, আহাম্মদ নগর আবদুস সাত্তারের দোকান থেকে কাইথরা সপ্রাবি হয়ে আইজি হোসেন সাহেব সড়ক সংযুক্ত রাস্তাটি সরকারী অনুদানে দীর্ঘ বছর পূর্বে সৃষ্টি হয়েছে। ওই রাস্তা সংস্কারের লক্ষে ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে এলজিএসপির ২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা অনুমোদিত হয়। উক্ত অর্থায়নে ইট দ্বারা রাস্তার সলিং করতে গেলে একই এলাকার মৃত আবদুল ওহাবের পুত্র মোঃ জাহাঙ্গীর আলম গত ১১ ফেব্রুয়ারী চাঁদপুর বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেটের আদালতে ফৌজদারী কার্যবিধি আইনের ১৪৫ ধারা মোতাবেক ২২৪/২১নং একটি দরখাস্ত মামলা দায়ের করেন। যাতে ইউপি চেয়ারম্যান হাজী আবু হানিফ, আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ শফিউল্লাহ্, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ জয়নাল আবেদীন, রাস্তা মেরামতে নিয়জিত শ্রমিক আবদুল হামিদ ও জসিম উদ্দীনকে দ্বিতীয় পক্ষ করা হয়। ১২ ফেব্রুয়ারী শাহরাস্তি থানার পিএসআই মোঃ শাহরিন হোসেন আদালতের নির্দেশক্রমে নালিশী ভূমিতে শান্তি শৃংখলা বজায়ে রাখতে উভয় পক্ষকে নোটিশ জারী করেন। যে কারনে রাস্তার কাজ বন্ধ রয়েছে। এঘটনার প্রতিবাদে স্থানিয় জনগন রাস্তায় নেমে আসেন এবং তারা বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ জানান।

প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, গ্রামকে শহরে পরিনত করো। শহরে পরিনত করতে সর্বপ্রথম যাতায়াতের সুবিধায় রাস্তা নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন। আর আজ ওই রাস্তাতেই যাতায়াত বা সংস্কারে নিষেধাজ্ঞা জারী করেছেন মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। যেখানে উক্ত রাস্তাটি বহু আগেই সরকারী অনুদানে সৃষ্টি হয়েছে। এমন অন্যায়ের প্রতিবাদে তিনি তীব্র নিন্দা জানান।

ইউপি চেয়ারম্যান হাজী আবু হানিফ বলেন, যেখানে রাস্তাটি সরকারী তালিকায় অন্তর্ভুক্ত সেখানে মোঃ জাহাঙ্গীর আলম কি ভাবে সরকারী রাস্তায় এবং সরকারী কাজে বাধা প্রদান করেন তা আমার বোধগম্য নয়। তিনি আরও বলেন, কাজ শুরুর আগে জাহাঙ্গীর চাঁদা চেয়েছিলেন। ওই চাঁদা না দেয়ায় তিনি এই নিষেধাজ্ঞা জারী করেন। যা জনসাধারণের সাথে প্রহসন করছেন বলে তিনি মনে করেন।

এলাকাবাসী বলেন, এই রাস্তাটি বহু বছর আগে তৈরী করা হয়েছে। প্রথমে আবদুল মমিন চেয়ারম্যান, তারপর ইউপি চেয়ারম্যান আমানিল্লাহ্ খান সরকারী অনুদানের মাধ্যমে রাস্তাটি নির্মাণ করেন। নির্মানের সুদীর্ঘ ৩০ বছর পেরিয়ে যাওয়ার পথে জাহাঙ্গীর বেশ কয়েক বার কোর্টে নিষেধাজ্ঞা জারী করেন এবং তা টাকার বিনিময়ে আবার উত্তোলন করেন। এবারও রাস্তাটি সংস্কার কালে তিনি বাধা দেন এবং লক্ষাধিক টাকা চাঁদা বাদী করেন। আমরা এলাকাবাসী ওই টাকা দিতে ব্যর্থ হলে জাহাঙ্গীর আলম আদালতে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে রাস্তার কাজ বন্ধ করান। এমতাবস্থায় তারা অহেতুক হয়রানিকারী ও চাঁদাবাজ জাহাঙ্গীরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সদস্য আবদুল মান্নান, ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহিম মানিকসহ এলাকার ২শতাধিক নারী ও পুরুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে