December 5, 2020, 2:03 pm


বয়সন্ধিকালে কোন ধরনের লজ্জা নয়, এটি সচেতনতার বিষয়: বৈশাখী বড়ুয়া

মো. মহিউদ্দিন আল আজাদ:

হাজীগঞ্জ সরকারি মডেল পাইলট হাই স্কুল এন্ড কলেজের প্রায় ১২’শ ছাত্রীর মাঝে স্যানিটারি ন্যাপকিন বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বৈশাখী বড়ুয়া।

রোববার দুপুরে বিদ্যালয়ের হলরুমে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি উপস্থিত থেকে এই স্যানেটারি ন্যাপকিন বিতরণ ও ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বৈশাখী বড়ুয়া বলেন, শীতে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধির আশংকা রয়েছে। তাই করোনাভাইরাস প্রতিরোধে আমাদেরকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে ব্যক্তিগতভাবে সচেতনতা বাড়াতে হবে। আমি সচেতন হলে, আমার পরিবার সচেতন হবে। আর পরিবার সচেতন হলে এমনিতেই সামাজিকভাবে সবাই সচেতন ও দায়িত্বশীল হবে।

তিনি কৈশোরকালীন বিভিন্ন দিক তুলে ধরে ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, বয়সন্ধিকালে কোন ধরনের লজ্জা নয়, এটি সচেতনতার বিষয়। আমাদেরকে (মেয়ে) সুস্থ থাকতে হলে এবং ভবিষ্যতে নিরাপদ মাতৃত্ব টেকসইকরণে বয়সন্ধিকালের প্রতি অবশ্যই গুরুত্ব দিতে হবে। এই সময়ে পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ ও স্বাস্থ্য সচেতন হতে হবে। কোন ধরেন সমস্যা হলে মায়ের সাথে শেয়ার করবে। প্রয়োজনে ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে অথবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগাযোগ করবে।

মেয়েদের আর পিছে ফিরে তাকানোর সুযোগ নেই উল্লেখ করে বৈশাখী বড়ুয়া ছাত্রীদের বলেন, নিচু নয় মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর সময় ও সুযোগ এসেছে। কারণ সরকার সবধরেন সুযোগ তৈরি দিয়েছে এবং দিচ্ছে। সুতরাং এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে তোমাদের এগিয়ে যেতে হবে। আগামি দিনের উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশের নেতৃত্ব তোমরাই দিবে। তাই তোমাদেরকে এই সময় (কৈশোরকালীন) থেকেই স্বাস্থ্য সচেতন হতে হবে এবং বড় হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে।

অধ্যক্ষ আবু সাঈদের সভাপ্রধানে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সহকারি সার্জন ইফফাত রুবাইয়া নাসির। তিনি ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে স্বাস্থ্য সচেতনতার বিষয়ে বিশেষ করে বয়সন্ধিকালের সমস্যা ও সমাধান, পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ এবং টিটি টিকার বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন। বক্তব্য শেষে তিনি ছার্ত্রীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মোস্তাফিজুর রহমান মিন্টু ও উপজেলা একাডেমিক সুপারভাজার সুনির্মল দেউড়ি, বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন, সিনিয়র সহকারী শিক্ষক মমতাজ বেগম। প্রভাষক আরিফ ইমাম মিন্টুর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করেন, বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী কাম হিসাব রক্ষক মো. আমির হোসেন।

এ সময় সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. হোসাঈনুল আজম, ভোকেশনাল শাখার সমন্বয়কারী মো. জহিরুল ইসলাম মজুমদার, সিনিয়র শিক্ষক মো. মিজানুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলমসহ বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষক এবং জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, বিদ্যালয়ের অর্থায়নে ছাত্রীদের স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষে এই স্যানেটারি ন্যাপকিন বিতরণ করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে