September 30, 2020, 6:50 pm


কচুয়ায় সদর ইউনিয়নে গরীব ও অসহায় মানুষের সেবক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন লিটন

নিজস্ব প্রতিনিধি:

চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার ৭নং সদর ইউনিয়নবাসীকে সার্বক্ষনিক মানুষের পাশে থেকে সেবা করে যাচ্ছেন, ইউপি চেয়ারম্যান ও সাবেক ছাত্রনেতা মো.জসিম উদ্দিন লিটন। তিনি তাঁর ইউনিয়নে একজন সফল চেয়ারম্যান হিসেবে সকলে স্থরের মানুষের সাথে মিলেমিশে দেশের উন্নয়নের স্বার্থে কাজ করে যাচ্ছেন।
যখন সারা বিশ্বে করোনার ভয়াবহতায় বিপর্যস্থ জনজীবন।

সাধারণ খেটে খাওয়া দরিদ্র মানুষ যখন মানবতার জীবন যাপন করছে। ঠিক সে মুহুর্তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডাকে সাড়া দিয়ে আর্তমানবতার সেবায় এগিয়ে এসেছেন কচুয়া উপজেলার ৭নং সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো.জসিম উদ্দিন লিটন।

সারাদেশে যখন ত্রাণের জন্য হাহাকার। নানা রকম কেলেঙ্কারির খবর আসছে জনপ্রতিনিধিদের। সে সময় শুধু সরকারি ত্রাণের অপেক্ষায় বসে না থেকে ব্যক্তিগত প্রচেষ্টায় মানুষের ঘরে ঘরে খাবার পৌছে দিচ্ছেন সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান।

এমনকি বর্ষকালে মাঠে ও খালে পানি আটকিয়ে থাকে এতে কৃষকদের বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হয়। তাছাড়া খাল খনন না থাকায় বৃষ্টির পানিগুলো আবাদি জমিতে ঢুকে আকস্মিক বন্যায় পরিস্থিতি দেখা দেয়। সরকারিভাবে খালের নকশা অনুযায়ী নিজের উদ্যোগে খনন করে যাচ্ছেন ইউপি চেয়ারম্যান লিটন।
তিনি দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হলেও প্রতিদিন নিয়মিত অফিস করছেন। উপজেলা প্রশাসনের কাজে সার্বক্ষণিক নির্দেশনা দেয়ার পাশাপাশি সচেতনতাবৃদ্ধিতে কাজ করছেন। এছাড়া ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ও দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে সমন্বয় করে অগ্রভাগে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হলে দেশের অনেক জনপ্রতিনিধি আত্মগোপনে চলে গেলেও করোনা ভাইরাস শুরু থেকে কর্মহীন মানুষের পাশে রয়েছেন চেয়ারম্যান লিটন। তিনি সরকারি সহায়তার সুষ্ঠু বন্টনের পাশাপাশি ব্যক্তিগত উদ্যোগেও খাদ্যসহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন। সাধারন মানুষের দুঃখ কষ্ট কথা শুনে বিভিন্ন সহযোগীতা করছেন।

ইউপি চেয়ারম্যান মো.জসিম উদ্দিন লিটন ২০১৬ সালে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন। ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রামের সর্বস্তরের মানুষের সেবা করে যাচ্ছেন।

ইউপি চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন লিটন বলেন, আমি কাজের মানুষ, মানুষের সেবায় বিশ্বাসী। মানুষের সেবা ছাড়া কিছু বুঝি না। যে কারণে মানুষও আমাকে ভালোবেসে বিপুল ভোটে আমাকে ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত করেন। তাদের ঋণ শোধ করার মতো নয়। এই বিপদে তাদের ছেড়ে ঘরে থাকব- তা হয় না। শুধু করোনা মহামারি নয়- যে কোন দুর্যোগে মানুষের পাশে থেকে কাজ করে যাব। জীবনের শেষ সময় পর্য়ন্ত মানুষের সেবা করে যাবেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি আরো বলেন, আমার ইউনিয়নের একটি কুচক্র মহল আমার বিরুদ্ধে উঠাপরে লেগেছে। আমার ইউনিয়ন পরিষদের সম্মানিত সদস্যদেরকে নিয়ে ভুল বোঝিয়ে আমাকে হেয়প্রতিপূর্ন করার জন্য বিভিন্ন ভাবে অপপ্রচার চালাচ্ছে, আমি এই অপপ্রচারে বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ভাবে প্রতিহত করতে চাই, উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক সহযোগীতা কামনা করছি।

ইউনিয়ন বাসীরা বলেন, শুধু করোনাকাল নয়, সব সময় তিনি মানুষের পাশে থেকে সেবা করে থাকেন। সার্বক্ষণিক তিনি চলমান পরিস্থিতিতে সরকারের দেওয়া সকল সচেতনতা বার্তা গ্রামের সাধারন মানুষকে সরেজমিনে উপস্থিত হয়ে নিরাপদ দ্রুত বজায় রেখে উদ্বুদ্ধ করছেন। বলা যেতে পারে তিনি নিজেকে জনগনের সেবার বিলিয়ে দিচ্ছেন। মহামারি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও সচেতনতায় আরেক নাম লিটন চেয়ারম্যান।

বর্তমানে তিনি ছাড়া আমাদের গ্রামে এখন পর্যন্ত কেউ তারমত করে খোঁজখবর নেয়নি। সে কচুয়া উপজেলায় একজন ইউপি চেয়ারম্যান হয়ে মানবতার সেবায় অন্যরকম দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছেন।
ইউনিয়ন বাসীরা আরো জানান, মধ্যরাতে নিম্মআয়ের মানুষের ঘরে ঘরে ত্রানের বরাদ্দকৃত খাদ্যদ্রব্য পৌছে দিচ্ছেন তিনি।

এছারাও নিজেই জনসাধারণের সচেতনতায় মাইকিং করছেন। এছারা নিজের উদ্যোগে নিজের অর্থায়নে মাস্ক, জীবাণুনাশক স্প্রে, চাল, ডাল তৈল, আলু ও সাবান ইত্যাদি বিতরণ করে বেড়াচ্ছেন। আমাদের সেবায় অব্যাহিত রাখার জন্য আমরা ইউনিয়ন বাসীরা আগমী ইউপি নির্বাচনে মো. জসিম উদ্দিন লিটনকে দ্বিতীয় বার মতো নির্বাচিত করবো ইনশাল্লাহ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে