October 22, 2021, 10:36 am


কচুয়ায় অসামাজিক কাজে বাধা দেওয়ায় দু’যুবকে মারধর! থানায় অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি ॥
কচুয়ায় অসামাজিক কাজে বাঁধা দেওয়ায় ইউসুফ (১৮) ও আব্দুল্লাহ (২১) মারধর করার অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার এ ঘটনায় মারধরের শিকার ইউসুফের বাবা আব্দুল খলিল বাদী হয়ে কচুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, কচুয়া পৌরসভাধীন ধামালুয়া গণি মেম্বার বাড়ির বাসিন্দা শাহজাহান মিয়া ও তার স্ত্রী বাড়িতে না থাকায় বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের ছেলে মো. রাশেদের সাথে দেখা করতে আসে পাশ্ববর্তী এক প্রবাসীর স্ত্রী কুলসুমা বেগম নামের এক নারী। রাশেদের চাচাতো ভাই আব্দুল্লাহ ও পাশ্ববর্তী বাড়ির খলিলে ছেলে ইউসুফ ওই নারীর পরিচয় জানতে চাইলে তারা উভয়ে ভিন্ন পরিচয় দেয়। এক পর্যায়ে রাশেদ ওই নারীর সঠিক পরিচয় না দিয়ে তাদেরকে অর্থালোভ দেখায়। এতে তারা রাজি না হওয়ায় ওই নারী ও রাশেদ তাদের সাথে বাকবিতন্ডায় জরিয়ে পড়ে। পরে তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে বিয়ে অনুষ্ঠানে চলে যায়।

ওইদিন রাত সাড়ে ১১ টার দিকে ইউসুফ ও আব্দুল্লাহ মোটরসাইকেল যোগে বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে বাড়ি ফিরে এসে আব্দুল্লাহকে তার বাড়ির সামনে নামিয়ে নিজ বাড়ির দিকে রওয়ানা হয়। পথিমধ্যে রাশেদ ও নাঈম ৩/৪ জন অজ্ঞাত যুবক মিলে ইউসুফকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গামছা দিয়ে মুখ বেঁধে ফেলে। পরে তারা তাকে টেনে হিছড়ে মারধর করে হত্যার উদ্দেশ্যে রাশেদের মাছের প্রজেক্টের উত্তর পাড়ে নির্ঝন জায়গায় চারা গাছের সাথে হাত ও পা বেঁধে মারধর করে অজ্ঞান করে ফেলে। পরে তারা রাত দেড়টার দিকে রাশেদ তার চাচাতো ভাই আব্দুল্লাহকে ঘর থেকে ডেকে এনে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারারো ছুরি দিয়ে পেটে আঘাত করলে রক্তাত্ব জখম হয়। এসময় আব্দুল্লাহর ডাক চিৎকারে রাশেদ ও তার সঙ্গীরা দ্রুত পালিয়ে যায়।

আশপাশের লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে আব্দুল্লাহকে উদ্ধার করে। পরে বিষয়টি ইউসুফের পরিবারের সদস্যরা জানতে পেরে খোঁজাখুজি করে। এক পর্যায়ে হাত পা বাঁধা অবস্থায় ইউসুফকে রাশেদের প্রজেক্টের পাড় থেকে মৃত প্রায় অবস্থায় উদ্ধার করে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

পরদিন শুক্রবার সকালে অসামাজিক কাজে বাঁধা প্রদান করায় ইউসুফ ও আব্দুল্লাহর উপর হামলা ও হত্যার চেষ্টায় ঘটনায় অভিযুক্ত রাশেদ ও কুলসুমার বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে স্থানীয়রা।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত কুলসামা বেগম জানান, গত বৃহস্পতিবার ধামালুয়া গণি মেম্বারের বাড়ির সামনে দিয়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে পথিমধ্যে রাশেদের মায়ের সাথে দেখা করতে গেলে আব্দুল্লাহ ও ইউসুফ আমাকে বিভিন্ন ধরনের অশালীন কথাবার্তা বলে আমার কাছ থেকে মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে